garo wangala dancegaro wangala danceWanna folk Dance

গারো প্রথাগত আইন কি প্রকৃতপক্ষে আইন?

গারো প্রথাগত আইন কি প্রকৃতপক্ষে আইন?

Mikrak Mrong Shuhel

বর্তমানে গারো সমাজে বহুল আলোচিত বিষয় হল গারো প্রথাগত আইন।আলোচনায় প্রশ্নের কেন্দ্রবিন্দু-গারো প্রথা আসলে আইন কিনা বা গারোরা তাদের প্রথা মানতে বাধ্য কিনা এবং না মানলে কী হবে।উৎসুকের মনের এই তৃষ্ণা মিটানোর জন্যই আমার এই প্রয়াস।প্রথমেই জেনে নিই প্রথা কী।হল্যান্ড এর মতে, প্রথা হল আচার-আচরণের সাধারণ নিয়ম যা পালন ও মান্য করা হয়।সুব্রামেনিয়ান চেট্টিয়ার বনাম কুমারাপ্পা চেট্টিয়ার মামলায় বিজ্ঞ আদালত প্রথার সংজ্ঞা প্রদান করেন যে, প্রথা হল সুনির্দিষ্ট বিধি যা স্মরণাতীত কাল থেকে বিদ্যমান ছিল এবং একটি নির্দিষ্ট এলাকায় তা আইনের কর্তৃত্ব লাভ করেছে।হুর প্রসাদ বনাম শেও দয়াল মামলায় বিজ্ঞ আদালত বলেন, প্রথা হল বিধি যা একটি বিশেষ পরিবারে বা বিশেষ এলাকায় বা বিশেষ শ্রেণী বা জাতির মধ্যে দীর্ঘকাল চর্চার কারণে আইনের কর্তৃত্ব লাভ করেছে।অতএব, প্রথা হল কোন সমাজের মধ্যে দীর্ঘকাল ধরে চলে আসা সেই সকল রীতিনীতি যা সংশ্লিষ্ট সমাজে আইনের কর্তৃত্ব বা আইনের মতো ক্ষমতাসম্পন্ন অবস্থান অর্জন করেছে।কোন রীতিনীতি প্রথা হতে হলে তা অবশ্যই সমাজ কর্তৃক স্বীকৃত হতে হবে, দীর্ঘকালব্যাপী প্রচলন থাকতে হবে এবং সমাজের লোকজন এটিকে আইনের মতো বাধ্যকর হিসেবে বিবেচনা করবে।প্রথার এই ধরনের শর্তাবলীর সাথে সুর মিলিয়ে ড. জুলিয়াস এল আর মারাক তার গারো কাস্টমারি ল’জ ট্রেডিশনস এন্ড প্রাকটিসেস বইয়ে গারো প্রথার সংজ্ঞা দিয়েছেন এভাবে-প্রথা অর্থ গারো আদিবাসীর রীতিনীতি বা চর্চা যা দীর্ঘকাল ধরে প্রতিষ্ঠিত, প্রচলিত, সুনির্দিষ্ট এবং স্থিতিশীল, যাকে অলিখিত আইন হিসেবে মনে করা হয় এবং যা আইনের মতো বাধ্যকর। তাঁর মতে, প্রথাগত আইন হল গারোদের সেই সকল প্রথাগত আইন যেসব প্রথা, রীতিনীতি যা দীর্ঘকাল বা প্রজন্মের পর প্রজন্ম ধরে চর্চার মাধ্যমে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে।

এখন দেখা যাক আইন কী।আইনের সংজ্ঞা বিভিন্ন আইনজ্ঞ বিভিন্নভাবে প্রদান করেছেন।সংজ্ঞাগুলো তাত্ত্বিক হওয়ায় এবং এই লেখা একাডেমিক উদ্দেশ্যে না হওয়ায়, আমি সেই সংজ্ঞাগুলো নিয়ে আলোচনা করছি না।আমাদের সংবিধানে প্রদানকৃত আইনের সংজ্ঞা দিয়েই আইনকে বুঝানোর চেষ্টা করব।বাংলাদেশ সংবিধানের ১৫২ নং অনুচ্ছেদে বলা আছে-“আইন অর্থ কোন আইন, অধ্যাদেশ, আদেশ, বিধি, প্রবিধান, উপ-আইন, বিজ্ঞপ্তি ও অন্যান্য আইনগত দলিল এবং বাংলাদেশে আইনের ক্ষমতাসম্পন্ন যে কোন প্রথা বা রীতি”।এছাড়া সংবিধানের ১১১ অনুচ্ছেদে বলা হয়েছে, আপীল বিভাগ কর্তৃক ঘোষিত আইন হাইকোর্ট বিভাগ এবং সুপ্রীম কোর্টের যেকোন বিভাগ কর্তৃক ঘোষিত আইনও অধঃস্তন সকল আদালতের জন্য অবশ্য পালনীয়।অতএব উচ্চ আদালতের রায়ও আইন।অর্থাৎ যেকোন প্রথাও আইন হিসেবে গণ্য হবে, তবে সেই প্রথাকে অবশ্যই আইনের ক্ষমতাসম্পন্ন হতে হবে। গারোদের প্রথা কি আইনের ক্ষমতাসম্পন্ন? যে প্রথা অনুসরণ করা অবশ্যই বাধ্যতামূলক এবং যে প্রথা অনুসরণ না করলে বা ভঙ্গ করলে এর বিরুদ্ধে প্রতিকার পাওয়া যায় বা সুযোগ রয়েছে, সেই প্রথাই আইনের ক্ষমতাসম্পন্ন।এই দিক দিয়ে গারো প্রথা অবশ্যই আইনের ক্ষমতাসম্পন্ন।আমাদের প্রথাগত আইন ভঙ্গ হলে এখনও এর বিরুদ্ধে সালিশ-দরবার হয়, বিচারও হয়। গারো সমাজে প্রথাকে নিজেদের মধ্যে অনুসরণ করা বাধ্যতামূলক বলে মনে করা হয়।এছাড়া, আদালতে প্রথা ভঙ্গের বিরুদ্ধে মামলা করে অনেকেই প্রতিকার পেয়েছেন।এই বিষয়ে কয়েকটি উদাহরণ না দিলেই নয়-রানচি মারাক বনাম বাসেং সাংমা লস্কর মামলায় আদালত সিদ্ধান্ত প্রদান করেন যে, স্ত্রী বর্তমান থাকা সত্ত্বেও বাসেং সাংমা অন্যত্র বিয়ে করেছে স্ত্রীর মাহারি অনুমতি ব্যতিরেকে, এতে গারো প্রথাগত আইন অনুসারে সে ব্যভিচারে লিপ্ত হয়েছে এবং যেহেতু সে আখিমমুক্ত হয়নি, সেহেতু সে গারো প্রথাগত আইনের আরো একটি দোষে দোষী হয়েছে।(এম-এ(এস)১৩ এইচ, ১৯৬৮) আসেং মারাক বনাম গিন্মি সাংমা মামলায় আদালত সিদ্ধান্ত প্রদান করেন, যেহেতু গারো প্রথাগত আইনানুসারে নকনা নক্রম ব্যতিত পরিবারের অন্যান্য মেয়ে জামাতারা শ্বশুর-শ্বাশুড়ীর গৃহ ব্যতিতও অন্যত্র স্বাধীনভাবে বসতি স্থাপন করতে পারে।(সিআর-২(এইচ)৫৮) এছাড়াও নিরদী সাংমা বনাম নন্দ সাংমা গং (৩৫০/১৯৩৯) নং মামলার সিদ্ধান্ত উল্লেখযোগ্য।

অতএব দেখা যায়, আদালত কর্তৃক আমাদের প্রথা স্বীকৃত হয়েছে। উজাগর সিং বনাম জেও মামলায় আদালত বলেন, যখন কোন আদালত কর্তৃক কোন প্রথা স্বীকৃত হয়, তখন সেটি আইনে রূপলাভ করে।(এআইআর ১৯৫৯ এসসি ১০১৪) উল্লেখ্য, বাংলাদেশে হিন্দু বা মুসলিমদের জন্য উত্তরাধিকার, ভরণপোষণ, অভিভাবকত্ব বা বিবাহ সম্পর্কিত সংসদ কর্তৃক প্রণীত আইন নেই, তারা ধর্মীয় নীতি অনুসরণ করেন। তাদের ধর্মীয় নীতিও বাংলাদেশে আইন হিসেবে গণ্য হয়। উপরের আলোচনায় স্পষ্ট হয়েছে যে, সংবিধানের বিধান অনুযায়ী আমাদের প্রথাকে আইন হিসেবে গণ্য করা যায়।

তথ্যসূত্র:
বাংলাদেশের সংবিধান
সুভাষ জেংচামের গারো আইন
Jurisprudence and Legal Theory, by Dr. V. D. Mahajan.

W.R. 55 (PC) cited in Tondon, M.P., Jurisprudence (Legal Theory).

Garo Customary Laws Traditions and Practices by Dr. Julias L R Marak.

AIR 1955 Mad 144 26

AIR 1959 SC 1014

https://indiankanoon.org/

COMMENTS

Wordpress (0)
Disqus (0 )
error: Content is Copywrite!